কিডনাপারের প্রেমে পরে যাওয়া, Stockholm syndrome যা একটি মানুষিক রোগ

প্রথমে এই রোগের নাম ছিল “Capture bonding syndrome” । ১৯৭৩ সাথে সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে এক ব্যাংক ডাকাতির ঘটনার পর এই রোগ বিশ্বের মানুষের কাছে প্রাধান আলোচনার বস্তুতে রুপান্তরিত হয়। এরপর এই রোগের নামকরণ হয় Stockholm syndrome ।

এই রোগে আক্রান্ত মানুষ কিডনাপারের প্রতি সিম্প্যাথি-আবেগ দেখানো শুরু করে। একসময় তাদের জীবন বাজি রেখে প্রেমেও পরে যায় যদি তারা বিপরিত লিঙ্গের হয়। এমনকি তারা কিডনাপারদের হিরো মনে করে এবং আঈনশৃঙ্খলা বাহিনী বা সরকারকে ভিলেন হিসেবে দেখে। ফলে তারা সরকারকে কোনো রকম সহায়তা তো করেই না, বরং আদালত ও মিডিয়াতে দোষীদের পক্ষে কথা বলে।

১৯৭৩ সাথের ২৯ আগস্ট সকালে সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে একটি ব্যাংক ডাকাতি হয়। ডাকাতেরা ব্যাংকে ঢুকে বন্দুক চালায় এবং বলে “The party has just begun”. দুজন ডাকাত প্রায় ১৩১ ঘন্টা ধরে চার জনকে জিম্মি করে রাখে। যাদের মধ্যে একজন মহিলা ও তিন জন পুরুষ। এই চার জন ছাড়া পাওয়ার পর মিডিয়ার সামনে ডাকাতের পক্ষে কথা বলে। সাথে এমন আচরণ করে যেন আঈনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের আঘাত করার চেষ্টা করছে। কোর্টে তারা ডাকাতদের মুক্তির জন্য আবেদন করে এবং ডাকাতদের মুক্তির জন্য অর্থ সংগ্রহ করে। জিম্মিদের মধ্যে যিনি মহিলা ছিলেন, তিনি ডাকাতদের একজনের সাথে সম্পর্কেও জড়িয়ে পড়েন। যা বিশ্বের মানুষকে চমকে দেয়।

উল্লেখ যোগ্য ঘটনা

স্টন হর্ণব্যাকঃ স্টন হর্ণব্যাক নামের এই ব্যক্তি ২০০২ সালে ১১ বছর বয়সে অপহরণ হন। দুই বছর পর যখন তাকে অপহরণকারীর বাসা থেকে উদ্ধার করা হয় তখন দেখা যায় তার পালানোর সুযোগ থাকার পরও তিনি পালান নি। এমনকি তার কাছে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগও ছিল।

মেরী ম্যাকইলোরীঃ ১৯৩৩ সালের মে মাসের ২৭ তারিখ সন্ধায় ২৫ বছর বয়সী মেরী ম্যাকইলোরী তার বাসা থেকে চারজন ডাকাত দ্বারা অপহরণ হন এবং মুক্তিপনের পরে মেরী ম্যাকইলোরী ছাড়া পান। অতপর ডাকাতেরা ধরা পরে। তখন মেরী আদালতে ডাকাতদের পক্ষে কথা বলেন। তিনি স্বীকার করেন ডাকাতেরা তাকে ভালও জানত এবং তাদের মধ্যে একজন তাকে ফুল দিত। সে ডাকাতদের শাস্তি কমানোর কথা বলেন। মাঝে মধ্যে তাদের জন্য উপহার নিয়ে যেতেন। ১৯৪০ সালে মেরী ডাকাতদের কষ্ট আর সহ্য করতে না পেরে আত্বহত্যা করেন এবং সুইসাইড নোটে লিখে যান “আমার চারজন অপহরণকারীই সম্ভবত পৃথিবীতে একমাত্র মানুষ যারা আমায় পুরোদস্তুর বোকা ভাবেনি।”

Leave a Reply

You cannot copy content of this page